একগুচ্ছ কবিতা।। জালাল জয়

বৃহস্পতিবার, মে ২৪, ২০১৮ ৬:০১ অপরাহ্ণ
Share Button

 নীল কুয়াশা ১

একটা স্বপ্ন দেখে ছবি আঁকি
মনের রঙ মিশিয়ে হৃদ গহীনে
আদরের জল মিশিয়ে আদর খুঁজি
তারার বুকে জ্যোৎস্নাজলে

একটা রাজ্যগড়ি কাব্যপাতায় মধুরলতায়।
ধীরেধীরে বুকের ভেতর ছন্দ বানাই।
কৃষাণপুড়ে হিমেল রাতে
আগুন পোহাই।
নীল কুয়াশায় মন উড়িয়ে
বাতাস হয়ে এই পরানে

নাও তুমি আজ প্রাণ জড়িয়ে।

২.

কুয়াশাতে দিয়ে ডুব, কন্যা তুমি কেন চুপ। নিরভিমান চোখের কূপ, যেন চাঁদের জ্যোৎস্না ঝুপ।
আলোয় আলোয় ভাসায় মুখ,
হিমেল হাওয়ায় উড়ায় সুখ।
হেসে ভেসে কুয়াশায়, নেচে নেচে রুপ নেশায়।
পাতায় পাতায় শিশির জল। ঘাসের দেশে নিয়ে চল।
বুক মিশে নে ঘাসজলে,
দুখ ভুলে তুই আয় চলে।
অবুঝ শীতল কুয়াশায়,
শিশিরেতে মন পালায়। ভিজে ভিজে নেশাতুর। শীতল ছোঁয়ায় জাগে ভোর। মন ভিজে যায় শিশিরে। ঘাসের খোঁজে চাষিরে। মন যেন আজ তুলোরে। তুই উড়ে যাস কোন দূরে। উড়াল হাওয়ায় নীল নেশা। মিষ্টি যেন বিদিশা। টুপটুপে লাল ঐ টিপে।
হৃদয় যেন নেয় চিপে।

 

স্বপ্ন

স্বপ্নেরা বাঁচতে জানে না..
জানে না অনুভূতিগারে স্পর্শ করার নিয়ম

তারা জানে না
কিভাবে হৃদয়ের প্রাচীর ভেদ করে
নিতে হয় আপন করে

তারা জানে না
রাতের আঁধারে উড়ে যাওয়া বাতাসের গন্ধে
কলিজাহত হয়, আর গত হয়ে কত কষ্ট-যন্ত্রণা রেখে যায়
আকাশের মধ্যপথে

ঘুমভাঙা শব্দঘরে অচেনা মধুর গল্প গ্লাসে
টুপটাপ করে ঝরে পড়ে শ্রাবণীর জল

সপ্নেরা জানে না কতরাত নির্ঘুম রেখে
আমাকে ঘুরিয়েছে তার পিছু পিছু

আমি তার কাছে নাটাই—সূতোর ঘুড়ির মতন

 

শ্রাবণনামা

১.
কবিতা আত্মার প্রশান্তি মেটায়
চাকুরী পেটের ক্ষুধা মেটায়
ব্যস্ততা জীবনকে চেনায়
আর তুমি আমাকে শেখাও
ভালোবাসতে, ভালো থাকতে

২.
জীবন জীবনকে চেনায়
রোদের মত নেচে নেচে
নাচন যখন শ্রাবণ জলে
মেঘেদের উড়িয়ে আজ
ভিজে ভিজে এসো কাছে
আমি না হয় তোমায় দিলাম
তুমি আমায় দিলে
এই জীবনের যত ব্যস্ততা।

Share Button

আপনার মতামত দিন