ভাত রাঁধার গন্ধ।। অরণ্য আপন

বৃহস্পতিবার, মে ৩, ২০১৮ ৬:০০ অপরাহ্ণ
Share Button

আমার দুহাতের অাঙুল গলে ঝুরঝুর করে মাটি ঝরে পড়ে আমার মৃত প্রেমের ওপর
আমার চোখ হয়ে গেছে রক্ত জমে পাথর,
আমার বুক হয়ে গেছে কষ্ট জমে কবর।
মেঘে মেঘে ব্যথাতুর আগুন লেগে ক্ষুধার চোখে রক্ত ঝরে;
বাউলা ক্ষুধার অরণ্য পটপট করে ঈশ্বরের আগুনে পোড়ে
কেঁদে ওঠে ক্ষুধার শিশু
আমি শুনি কুকুরের কান্না, কাকের চিৎকার
হাঁ করা জুতার মতো আমার জীবন
জায়গা খোঁজে
কোথাও রাস্তা নেই পালিয়ে যাবার।
সামনে কে? পেছনে কে?
কোথাও কেউ নেই
শুধু ক্ষুধার অন্ধকার,
ক্ষুধার মিছিলে যাব আমি আবার
দাও দাও ঈশ্বর, অঙ্গ ভরে ক্ষুধা দাও
বদলে আমার প্রেমিকার ভালোবাসা তুমি নাও
ধু ধু মাঠ
চারদিকে মিটমিট করে জ্বলে ক্ষুধার জোনাকি
আমি কত মাস ধরে, কত বছর ধরে ক্ষুধার্ত লম্বা রাতের সফর করছি একাকী।

ক্ষুধার কোনো সার্টিফিকেট নেই
শুধু চিনচিনে ব্যথা আর নাড়ি ছেঁড়ার যন্ত্রণা আছে কালো রাত জুড়ে,
জল খেতে বিছানা ছাড়ি ঈশ্বরের আগুনে পুড়ে।
কবর থেকে মানুষ ক্ষুধার্ত মাথা, চাকরি প্রার্থী হাত তোলে
নিম্নমধ্যবিত্ত পাড়ায় যুবতীরা খিল খোলে
অাঁচল নামায়
ঈশ্বর দৌড়ায় এক আকাশ থেকে আরেক আকাশের রাস্তায়
আমি ফুলের গন্ধের চেয়ে ভাত রাঁধার গন্ধ বেশি শুঁকি
আমার ভেতরে ঈশ্বর নয়, ক্ষুধার্ত মুখগুলো বেশি দেয় উঁকি।

Share Button