মহাকবি হোমারের মৃত্যু

রবিবার, অক্টোবর ১৫, ২০১৭ ৭:৫১ পূর্বাহ্ণ
Share Button

সাহিত্যপুরীঃ প্রাচীন গ্রিক মহাকাব্যিক কবি ছিলেন হোমার। তার মহাকাব্যগুলি থেকেই পাশ্চাত্য সাহিত্যধারাটির সূচনা হয়েছিল। ‘ইলিয়ড’ এবং ‘ওডিসি’ মহাকাব্যদ্বয়ের অমর স্রষ্টা ছিলেন তিনি। কথাসাহিত্য ও সাহিত্যের সাধারণ ইতিহাসে এই দুই মহাকাব্যের প্রভাব অপরিসীম।

এই মহাকবির মৃত্যু নিয়ে প্রচলিত আছে একটি মজার গল্প। তিনি নাকি একটি ধাঁধার উত্তর দিতে না পেরে প্রচন্ডভাবে লজ্জিত, মর্মাহত এবং অপমানিত হয়ে পড়েন। শুধু তাই নয় সেই কারনেই অসুস্থ হয়ে কিছু দিনের মধ্যে তিনি মারা যান।

উল্লেখ্য যে, মহাকবি হোমার একদিন একদল জেলেকে জিজ্ঞেস করেছিলেন, তোমাদের মাছ ধরা কেমন চলছে? এর উত্তরে জেলে যে উত্তর দিয়েছিলেন ওটাই ছিলো মস্তবড় ধাঁধাঁ।
কবি হোমারের প্রশ্নের উত্তরে জেলেরা বলেছিলো- “আমরা যা ধরি তা ফেলেদিই, আর যা ধরতে পারি না তা ঘরে নিয়ে যাই।”
তাহলে প্রশ্ন হলো -জেলেরা এমন কি জিনিস ধরত, যা ধরতে পারলে ফেলে দিতো আর ধরতে না পারলে বাড়ি নিয়ে যেতো ?
এই ধাঁধাঁর আর উত্তর দিতে পারেননি হোমার। শেষে লজ্জায় ও অপমানে অস্থির হয়ে পড়েন। উত্তরের ভাবনায় অসুস্থ হয়ে পড়েন এবং মারা যান।

আরো মজার ব্যাপার হলো ধাঁধাটির উত্তর ছিলো খুব সহজ। এটি ছিলো এক ধরনের জলের পোকা, যে পোকাগুলো মাছ ধরার সময় মাছের সাথে জেলেদের জালে আটকে যেতো।
জেলেরা পোকাগুলোকে ধরে ধরে ফেলে দিতো। জাল পরিস্কার করতো কিন্তু সব পোকা ধরা সম্ভব হতো না। অসংখ্য পোকার মধ্যে গোটা কয়েক পোকা জালে আটকে থাকতোই। এগুলো জালের সাথে জেলেদের বাড়িতে চলে যেতো।
এটাই ছিলো ধাঁধার মূল রহস্য। যে রহস্য ভাঙতে না পেরে অস্থির হয়ে পড়েছিলেন মহাকবি হোমার।

Share Button