দেবাশীষ রায়ের কবিতা গতিপথ

ঘামে ভেজা একটা টি শার্ট বলতে পারে জীবনের মানে কি,
অফিস ফেরৎ ক্লান্ত একটা মানুষ বলতে পারে জীবনের মানে কি,
অর্থ,নির্ভরতা যোগানদাতা একজন অভিভাবক বলতে পারে জীবনের মানে কি,
দায়বদ্ধ একজন মা বলতে পারে জীবনের মানে কি।
জীবনের সঙ্গা এদের কাছে আলাদা!
এদের কাছে জীবনের সঙ্গা বড় নিষ্ঠুর, বড় তিক্ত!
কথায় কথায় এরা বাস্তবতার উদাহরণ টানে!
জীবনের মানে এদের নিকট কখনোই ঐকিক শোনা যায় না!
অফিসের কাজ,বসের বকুনি,কাঠ ফাটা রোদ,ঝড়বৃষ্টি,বাতের ব্যাথা, মাথার চুল উঠে যাওয়াও নাকি জীবনের গতিপথ!
হাজারো ঝামেলা উপেক্ষা করে চলার নামই নাকি জীবন!
হাজারো কষ্ট বুকে চেপে হাসি মুখে আমি ভালো আছি বলার নামই নাকি জীবন!
নিজের প্রিয়টা উপেক্ষা করে প্রিয়োর প্রিয়টা এনে দেয়ার নামই নাকি জীবন!
বড় ইচ্ছা হলো জীবনের মানেটার সত্যতা যাচাই করার।
এলাম, দেখলাম আর আর বুঝলাম এগুলো শুধু সত্যই নয়!
এগুলো চিরন্তন, অমোঘ এক বাণী।
সবে মাত্র ষোল-সতেরতে পা ফেলা এক বালক কি করে বুঝবে এর মর্ম?
যার টি-শার্টটি কখনো ঘামে ভিজে নি,
অফিস মানে যার কাছে স্রেফ টাকা পাওয়ার একটা দোকান,
অর্থ-নির্ভরতার প্রতীক যার কাছে এখনো তার বাবা,
জীবন মানে এদের কাছে বড়ই সহজ, বড়ই
সরল।
জীবনের মানে তো আর এটা নয়!
চলার পথে প্রতিটি পদক্ষেপে এর মানে বোঝা যায়,
নিকোটিনের ধোয়ার মাঝে এক চিলতে হাসিতেও অনেক সময় এর অর্থ খুজে পাওয়া যায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here